X
সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ২৮ চৈত্র ১৪২৭

সেকশনস

মরোক্কো থেকে পাচার হওয়া যুবকের ফোন, নোয়াখালীতে চক্রের সদস্য গ্রেফতার

আপডেট : ০৩ মার্চ ২০২১, ১৯:৫৪

নোয়াখালীতে মানবপাচারকারী সন্দেহে এক ব্যক্তিকে মঙ্গলবার রাতে গ্রেফতার করেছে জেলা সিআইডি পুলিশ। তার ব্যক্তির নাম মো. হানিফ ওরফে মাসুদ (৪০)। মরোক্কোতে গিয়ে প্রতারণার শিকার হওয়া এক বাংলাদেশি ও তার স্ত্রীর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতার মো. হানিফ একটি সংঘবদ্ধ মানবপাচারকারী দলের সদস্য বলে ধারণা করছে পুলিশ। এ ব্যাপারে অভিযোগকারী মো. আলাউদ্দিনের (৩৯) অভিযোগটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
হানিফ বেগমগঞ্জ উপজেলার গোপালপুর ইউপির ৮ নং ওয়ার্ড বসন্তের বাগের মৃত আলী আজমের ছেলে।

বুধবার (৩ মার্চ) বিকাল ৩টায় জেলা সিআইডি এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, ধৃত আসামিসহ সংঘবদ্ধ মানবপাচার চক্রের অপরাপর সদস্যদের ধোঁকায় পড়ে উপজেলার একলাশপুর গ্রামের রফিক উল্যার ছেলে মো. আলাউদ্দিন বর্তমানে মরোক্কোর নাদোর শহরে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। ওই ভিকটিম দেশে বেকার থাকায় ২০১৯ সালে বিদেশে কর্মসংস্থানের চেষ্টা করেন। বিষয়টি জানতে পেরে মানব পাচারকারী চক্রের সদস্য মো. হানিফ ইউরোপের দেশ স্পেন যাওয়ার জন্য ভিকটিমকে প্ররোচিত ও প্রলুব্ধ করে। বিনিময়ে ভিকটিমের কাছে ১১ লাখ টাকা দাবি করে। এসময় হানিফ কৌশলে একাধিক ব্যক্তির সঙ্গে ভিকটিমের পরিচয় ঘটিয়ে দিয়ে তার সরল মনে বিশ্বাস তৈরি করে যারা সবাই প্রকৃতপক্ষে মানবপাচারকারী দলের সদস্য। এরপর ভিকটিম সরল বিশ্বাসে প্রলুব্ধ হয়ে নগদ ১১ লাখ টাকা হানিফসহ মানব পাচারকারীদের হাতে তুলে দেয়।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, টাকা পাওয়ার পর গত ২০১৯ সালের ২০ মার্চে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে এয়ার এরাবিয়ার বিমানযোগে ভিকটিম আলাউদ্দিনকে দুবাই পাঠিয়ে দেয়। দুবাই এয়ারপোর্ট থেকে ভিকটিম আলাউদ্দিনকে পাচারকারীদের অপর দুই সদস্য রিসিভ করে তাদের ভাড়া বাড়িতে নিয়ে রাখে। ভিকটিম আলাউদ্দিন এর সঙ্গে থাকা ৩০০০ (তিন হাজার) ইউরো পাচারকারীরা জোর করে নিয়ে নেয়। এরপরও পাচারকারীরা আরও টাকা পাচারকারীদের মনোনীত ব্যাংক অ্যাকাউন্টে দিতে বললে ভিকটিমের ছোট ভাই মনির হোসেন আজিম গত ২০১৯ সালের ২৫ মার্চে ওয়ান ব্যাংকের চৌমুহনী শাখায় নগদ ৫০ হাজার টাকা পাচারকারীদের অ্যাকাউন্টে জমা করে। পরবর্তীতে পাচারকারীরা দুবাই থেকে ভিকটিম আলাউদ্দিনের পাসপোর্টে আফ্রিকার দেশ মালির ভিসা ইস্যু করে। ২০১৯ সালের ৩ এপ্রিল দুবাই এয়ারপোর্ট থেকে ইথিওপিয়া এয়ারলাইন্সে আফ্রিকার দেশ মালিতে পাচার করে দেয়।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, মালিতে গিয়ে আলাউদ্দিন পড়েন সেখানকার মানবপাচারকারী চক্রের সদস্য আফ্রিকান ইউরো ও ইব্রাহিমের খপ্পড়ে। তারা মালির বামাকো এয়ারপোর্ট থেকে ভিকটিমকে রিসিভ করে তাদের বাড়িতে জিম্মি করে। সেখানে অস্ত্রের মুখে আলাউদ্দিনের পাসপোর্ট নিয়ে নেয়। এরপর তার মতো মানবপাচারের শিকার মোট ১৯ জনের একটা দল তৈরি করে। এই আফ্রিকার দেশ মালি থেকে এই দুই রিং লিডারের নেতৃত্বে পায়ে হেঁটে অনেকটা পথ যাওয়ার পর লরি গাড়িতে চড়িয়ে সাহারা মরুভূমি ও বড়বড় পাহাড়ি রাস্তা পাড়ি দেয় তারা। একটানা ৫ দিন এভাবে অনাহারে রেখে সাহারা পাড়ি দিয়ে আফ্রিকার মরক্কোর নাদোর শহরে পাচার করে দেয়। সেখানে তাদের রিসিভ করে মানবপাচারকারী চক্রের অপরাপর সদস্যরা। এরা আলাউদ্দিনসহ মোট ৯ জনকে তাদের নাদোর শহরের ভাড়াবাড়িতে জিম্মি করে রাখে। সেখান থেকে ভিকটিম আলাউদ্দিন জিম্মির বিষয়টি তার স্ত্রী সাবিনা আক্তার নুপুর (২৫) কে ফোনে জানালে, ভিকটিমের মুক্তির জন্য তার স্ত্রী ১ লাখ চল্লিশ হাজার টাকা মানব পাচারকারী চক্রের সদস্য ওই মো. হানিফ ওরফে মাসুদকে মুক্তিপণ হিসেবে দেয়।

এরপর, নুপুর বাদী হয়ে বেগমগঞ্জ থানায় হাজির হয়ে মো. হানিফসহ মানবপাচারকারী চক্রের অপরাপর সদস্যদের বিরুদ্ধে গত ১০ ডিসেম্বর এজাহার দায়ের করেন। মামলার গুরুত্ব বিবেচনায় সিআইডি, নোয়াখালী মামলাটি স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে নিজেদের হাতে নেয়। এদিকে,মামলায় সিআইডি যুক্ত হওয়ার খবর পেয়ে আসামিরা এলাকা থেকে পালিয়ে যায়। তবে বাদীর দেওয়া তথ্য উপাত্ত ও প্রাপ্ত তথ্য বিশ্লেষণ করে, তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে ও গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে টিম সিআইডি নোয়াখালীতে আসামিদের শনাক্ত ও তাদের অবস্থান খুঁজে পায়। পরবর্তীতে বিশেষ পুলিশ সুপার সিআইডি, নোয়াখালী এর তত্ত্বাবধানে দীর্ঘ প্রচেষ্টায় মো. হানিফ ওরফে মাসুদকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারের পর হানিফ ঘটনা স্বীকার করে ভিকটিম আলাউদ্দিনের কাছ থেকে ১৪ লাখ টাকা নেওয়ার কথা জানিয়েছে। এ ঘটনায় তার ভাই আব্দুল ওয়াদুদসহ আরও কয়েকজন জড়িত বলে জানিয়েছে সে। অপর আসামিদের গ্রেফতারে সিআইডির অভিযান চলছে।

উল্লেখ্য, এর আগে ২০২০ সালের মে মাসে লিবিয়ার মানবপাচারকারীদের হাতে ২৬ বাংলাদেশি খুন হওয়ার মতো ভয়াবহ ঘটনা ঘটে। এরপর আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ধরপাকড় চালিয়ে সারাদেশে মানবপাচারকারী চক্রের শতাধিক সদস্যকে গ্রেফতার করলেও এখনও মো. হানিফদের মতো মানবপাচারকারীরা তাদের তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে।

/টিএন/

সম্পর্কিত

ধর্ষণের পর আটকে রেখে মুক্তিপণ দাবির অভিযোগ, গ্রেফতার ৪

ধর্ষণের পর আটকে রেখে মুক্তিপণ দাবির অভিযোগ, গ্রেফতার ৪

হেলে পড়া ভবনটির অনুমোদন নেই, ভেঙে ফেলতে চসিককে চিঠি

হেলে পড়া ভবনটির অনুমোদন নেই, ভেঙে ফেলতে চসিককে চিঠি

মাদ্রাসার কম্বলের নিচে মিললো শিশুর মরদেহ

মাদ্রাসার কম্বলের নিচে মিললো শিশুর মরদেহ

‘ব্রাহ্মণবাড়িয়াকে এক টুকরো আফগানিস্তান বানাতে চায় হেফাজত’

‘ব্রাহ্মণবাড়িয়াকে এক টুকরো আফগানিস্তান বানাতে চায় হেফাজত’

জেলা পরিষদের ক্ষতি পাঁচ কোটি টাকা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতের তাণ্ডবজেলা পরিষদের ক্ষতি পাঁচ কোটি টাকা

মাদ্রাসায় করোনা আসবে না: বাবুনগরী

মাদ্রাসায় করোনা আসবে না: বাবুনগরী

বাবুনগরী বললেন ‘এটা মামুনুলের ব্যক্তিগত ব্যাপার’

বাবুনগরী বললেন ‘এটা মামুনুলের ব্যক্তিগত ব্যাপার’

হাটহাজারী মাদ্রাসায় বৈঠকে বসেছেন হেফাজত নেতারা

হাটহাজারী মাদ্রাসায় বৈঠকে বসেছেন হেফাজত নেতারা

পটিয়া থানা ভাঙচুরের অভিযোগে ৫ হেফাজত কর্মী গ্রেফতার

পটিয়া থানা ভাঙচুরের অভিযোগে ৫ হেফাজত কর্মী গ্রেফতার

চট্টগ্রামে হেলে পড়েছে ৫ তলা ভবন

চট্টগ্রামে হেলে পড়েছে ৫ তলা ভবন

হেফাজতের তাণ্ডবের সময় ছিনিয়ে নেওয়া গুলি উদ্ধার, গ্রেফতার চার

হেফাজতের তাণ্ডবের সময় ছিনিয়ে নেওয়া গুলি উদ্ধার, গ্রেফতার চার

চট্টগ্রামে আরও ৫ জনের মৃত্যু, ৫২৩ জন করোনায় আক্রান্ত

চট্টগ্রামে আরও ৫ জনের মৃত্যু, ৫২৩ জন করোনায় আক্রান্ত

সর্বশেষ

যমুনার বুকে কৃষকের হাসি!

যমুনার বুকে কৃষকের হাসি!

ধর্ষণের পর আটকে রেখে মুক্তিপণ দাবির অভিযোগ, গ্রেফতার ৪

ধর্ষণের পর আটকে রেখে মুক্তিপণ দাবির অভিযোগ, গ্রেফতার ৪

নারায়ণগঞ্জে গ্যাসের আগুনে দুইজন দগ্ধ

নারায়ণগঞ্জে গ্যাসের আগুনে দুইজন দগ্ধ

৩০ কোটি টাকার টেন্ডার নিয়ে জবি ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের হাতাহাতি

৩০ কোটি টাকার টেন্ডার নিয়ে জবি ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের হাতাহাতি

দারিদ্র্য ছাপিয়ে দিপার তাক লাগানো সাফল্য

দারিদ্র্য ছাপিয়ে দিপার তাক লাগানো সাফল্য

দারুণ জয়ে শুরু কলকাতার, সাদামাটা সাকিব

দারুণ জয়ে শুরু কলকাতার, সাদামাটা সাকিব

পাটুরিয়া ঘাটে উপেক্ষিত স্বাস্থ্য বিধি!

পাটুরিয়া ঘাটে উপেক্ষিত স্বাস্থ্য বিধি!

সিনেমার জন্য তাদের আসল নামটাই মুছে গেলো!

সিনেমার জন্য তাদের আসল নামটাই মুছে গেলো!

হেলে পড়া ভবনটির অনুমোদন নেই, ভেঙে ফেলতে চসিককে চিঠি

হেলে পড়া ভবনটির অনুমোদন নেই, ভেঙে ফেলতে চসিককে চিঠি

জমি নিয়ে বিরোধ, প্রতিবেশীকে কুপিয়ে হত্যা

জমি নিয়ে বিরোধ, প্রতিবেশীকে কুপিয়ে হত্যা

যেভাবে পশ্চিমবঙ্গে এবারের নির্বাচন বাংলাদেশময়

যেভাবে পশ্চিমবঙ্গে এবারের নির্বাচন বাংলাদেশময়

ছাত্র ইউনিয়নের বহিষ্কৃত অংশের ‘জাতীয় জরুরি সম্মেলন’ আহ্বান

ছাত্র ইউনিয়নের বহিষ্কৃত অংশের ‘জাতীয় জরুরি সম্মেলন’ আহ্বান

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ধর্ষণের পর আটকে রেখে মুক্তিপণ দাবির অভিযোগ, গ্রেফতার ৪

ধর্ষণের পর আটকে রেখে মুক্তিপণ দাবির অভিযোগ, গ্রেফতার ৪

হেলে পড়া ভবনটির অনুমোদন নেই, ভেঙে ফেলতে চসিককে চিঠি

হেলে পড়া ভবনটির অনুমোদন নেই, ভেঙে ফেলতে চসিককে চিঠি

মাদ্রাসার কম্বলের নিচে মিললো শিশুর মরদেহ

মাদ্রাসার কম্বলের নিচে মিললো শিশুর মরদেহ

‘ব্রাহ্মণবাড়িয়াকে এক টুকরো আফগানিস্তান বানাতে চায় হেফাজত’

‘ব্রাহ্মণবাড়িয়াকে এক টুকরো আফগানিস্তান বানাতে চায় হেফাজত’

জেলা পরিষদের ক্ষতি পাঁচ কোটি টাকা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতের তাণ্ডবজেলা পরিষদের ক্ষতি পাঁচ কোটি টাকা

মাদ্রাসায় করোনা আসবে না: বাবুনগরী

মাদ্রাসায় করোনা আসবে না: বাবুনগরী

বাবুনগরী বললেন ‘এটা মামুনুলের ব্যক্তিগত ব্যাপার’

বাবুনগরী বললেন ‘এটা মামুনুলের ব্যক্তিগত ব্যাপার’

হাটহাজারী মাদ্রাসায় বৈঠকে বসেছেন হেফাজত নেতারা

হাটহাজারী মাদ্রাসায় বৈঠকে বসেছেন হেফাজত নেতারা

পটিয়া থানা ভাঙচুরের অভিযোগে ৫ হেফাজত কর্মী গ্রেফতার

পটিয়া থানা ভাঙচুরের অভিযোগে ৫ হেফাজত কর্মী গ্রেফতার

চট্টগ্রামে হেলে পড়েছে ৫ তলা ভবন

চট্টগ্রামে হেলে পড়েছে ৫ তলা ভবন

Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.
© 2021 Bangla Tribune