X
সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ২৮ চৈত্র ১৪২৭

সেকশনস

১৮ জনের মৃত্যু সত্ত্বেও মিয়ানমারে আবার বিক্ষোভের প্রস্তুতি, সু চির বিরুদ্ধে নতুন মামলা

আপডেট : ০১ মার্চ ২০২১, ১৪:০১
image

মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থান পরবর্তী সবচেয়ে রক্তাক্ত দিনটি পার করে আবারও বিক্ষোভের প্রস্তুতি নিচ্ছে সামরিক শাসন বিরোধী আন্দোলনকারীরা। এদিকে সে দেশের ক্ষমতাচ্যুত বেসামরিক নেত্রী অং সান সু চির বিরুদ্ধে নতুন করে আরও একটি মামলা দেওয়া হয়েছে। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

এক মাস আগে ১ ফেব্রুয়ারি সামরিক বাহিনী ক্ষমতা দখল করার পর থেকে কয়েক সপ্তাহ ধরে চলা প্রতিবাদ দমন করতে রবিবার মিয়ানমারজুড়ে বিক্ষোভে গুলি চালায় পুলিশ। এদিন অন্তত ১৮ জন নিহত হয়। রয়টার্স জানিয়েছে, এই পরিস্থিতিতেও সোমবার ফের রাস্তায় নেমে সামরিক জান্তাবিরোধী বিক্ষোভ দেখানোর প্রস্তুতি নিয়েছেন আন্দোলনকারীরা।

নভেম্বরের নির্বাচনে পার্লামেন্টের বিভিন্ন আসনে জয় পাওয়া আইনপ্রণেতাদের একটি কমিটি বলেছে, রবিবারের সহিংসতায় অন্তত ২৬ জন নিহত হয়েছেন। তবে তাদের দেওয়া এ তথ্য যাচাই করা যায়নি বলে রয়টার্স জানিয়েছে। “সামরিক জান্তা কৃত শক্তির অতিরিক্ত ব্যবহার ও অন্যান্য লঙ্ঘন রেকর্ড করে রাখা হয়েছে এবং তাদের জবাবদিহিতার মুখোমুখি করা হবে,” টুইটারে বলেছেন তারা।

বেমারিক নেত্রী অং সান সু চির সরকারকে ক্ষমতায় পুনর্বহালের দাবিতে আন্দোলনকারীরা রবিবার বিক্ষোভ শুরু করার পরপরই দেশজুড়ে তাদের ওপর চড়াও হয় পুলিশ। দেশটির বৃহত্তম শহর ইয়াঙ্গনের বিভিন্ন অংশসহ দেশটির বিভিন্ন শহরে কাঁদুনে গ্যাস, স্টান গ্রেনেড ব্যবহার করে ও ফাঁকা গুলি ছুড়ে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা করে পুলিশ, কিন্তু তাতেও বিক্ষোভকারীদের হটাতে না পেরে গুলি চালালে অভ্যুত্থানের পর থেকে সবচেয়ে রক্তাক্ত দিন পার করে মিয়ানমার।

রয়টার্সকে একজন প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, ইয়াঙ্গুনের যে চৌরাস্তায় আগের দিন নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে আন্দোলনকারীদের সংঘর্ষ হয়েছিল সোমবার সেখানে পুলিশ ও সামরিক বাহিনীর প্রায় ১০টি গাড়ি মোতায়েন করা হয়েছে। পুলিশের বহরে রয়েছে জলকামানও।

অভ্যুত্থানের পর সু চিকে আটক করে তার বিরুদ্ধে নিয়ম ভেঙে ওয়াকিটকি ক্রয় ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ ভাঙার মামলা দেওয়া হয়েছিল। সোমবার নতুন করে তার বিরুদ্ধে ঝুঁকিপূর্ণ ও জনশান্তি বিনষ্টকারী তথ্য প্রকাশে উসকানির অভিযোগ আনা হয়েছে। তার আইনজীবী রয়টার্সকে জানিয়েছেন, আগামী ১৫ মার্চ সু চির শুনানির পরবর্তী তারিখ নির্ধারিত হয়েছে। এদিন ভিডিও কনফারেন্সে আদালতে হাজির করা হয় সু চিকে। ভিডিওতে তাকে সুস্থ দেখা গেছে। তবে তার স্বাস্থ্য খানিকটা ভেঙে পড়েছে।

উত্তরপশ্চিম মিয়ানমারে কালে শহরে বিক্ষোভকারীরা সু চির পোস্টার নিয়ে মিছিল শুরু করেছেন, তারা গণতন্ত্রের পক্ষে শ্লোগান দিচ্ছেন। ফেসবুকের লাইভ ভিডিওতে দেখা গেছে, শান রাজ্যের লাশিওতে বিক্ষোভকারীদের ছোট একটি দল একটি রাস্তায় জমায়েত হয়েছেন, তাদের মাথায় শক্ত ক্যাপ পরা। তারা শ্লোগান দিচ্ছেন আর পুলিশ তাদের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

“অভ্যুত্থানের পর এক মাস পার হল। গতকাল গুলি করে তারা আমাদের দমাতে চেয়েছে। আমরা আজ আবারও রাস্তায় নামবো,” এক ফেইসবুক পোস্টে বলেছেন আন্দোলনকারীদের অন্যতম নেতা ই থিনজার মং। আন্দোলনকারীদের একাংশ কর্তৃপক্ষের বসানো নজরদারি ক্যামেরাগুলো ধ্বংস করার ডাক দিয়েছে। আরেকদল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পেপার স্প্রের রেসিপি শেয়ার করেছে যেন তা ব্যবহার করে নিরাপত্তা বাহিনীর সাদা পোশাকে আসা সদস্যদের হামলা প্রতিরোধ করা যায়।

যারা মিছিলের সামনে থেকে পুলিশ ও সৈন্যদের মোকাবেলা করবে তাদের জন্য লোহার ঢাল তৈরি করেছেন অন্যান্যরা। নিরাপত্তা বাহিনীর কিছু সদস্য সংখ্যালঘু জাতির বিদ্রোহী গোষ্ঠীগুলোর ওপর কঠোর দমনপীড়ন চালানোর জন্য কুখ্যাত ইউনিটগুলোর অন্তর্ভুক্ত।

রবিবারের হত্যাকাণ্ডের প্রতিক্রিয়ায় বিশিষ্ট তরুণ আন্দোলনকারী থিনজার শুনলেই ই তার ফেইসবুক পেইজের পোস্টে বলেছেন, “আমি মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীকে সন্ত্রাসী সংগঠন বলে ঘোষণা করছি।”

রবিবারের সহিংসতার বিষয়ে সামরিক বাহিনী কোনো মন্তব্য করেনি এবং পুলিশ ও সামরিক বাহিনীর মুখপাত্ররা ফোন কলের কোনো জবাব দেনটি বলে জানিয়েছে রয়টার্স।
এদিকে রাষ্ট্রায়ত্ত গ্লোবাল নিউ লাইট অব মিয়ানমার সংবাদপত্র ২৮ ফেব্রুয়ারির তারিখ দেওয়া এক পোস্টে সতর্ক করে বলেছে, “নৈরাজ্যবাদী জনতার বিরুদ্ধে অনিবার্যভাবেই কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে।”আগে সংযম দেখালেও সামরিক বাহিনী এসব আর অগ্রাহ্য করবে না বলে এতে হুঁশিয়ার করা হয়।

মিয়ানমারে কারাবন্দিদের অধিকার নিয়ে কাজ করা ‘অ্যাসিসট্যান্স অ্যাসোসিয়েশন ফর পলিটিক্যাল প্রিজনার্স’ জানিয়েছে, অভ্যুত্থানের পর থেকে ১১৩২ জনকে গ্রেপ্তার, অভিযুক্ত বা সাজা দেওয়া হয়েছে, এদের মধ্যে ২৭০ জনকে রোববার আটক করা হয়েছে। কিছু প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, লোকজনকে ধরে নিয়ে যাওয়ার আগে পুলিশকে তাদের পেটাতে দেখেছেন তারা।

মিয়ানমারের অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে শুধু রাস্তায়ই প্রতিবাদ হচ্ছে এমন নয়, দেশটির সরকারি চাকুরিজীবীরা, শহর-নগরগুলোর প্রশাসন, বিচারব্যবস্থা, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য খাত এবং গণমাধ্যমও দৃঢ় প্রতিবাদে শামিল হয়েছে।

অভ্যুত্থানের প্রতিক্রিয়ায় পশ্চিমা দেশগুলো সীমিত কিছু নিষেধাজ্ঞা আরোপ করলেও কূটনৈতিক চাপ অগ্রাহ্য করা মিয়ানমারের জেনারেলদের ঐতিহ্য। তারা নতুন একটি নির্বাচন আয়োজনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে কিন্তু কোনও তারিখ নির্ধারণ করেনি।

/বিএ/

সম্পর্কিত

যেভাবে পশ্চিমবঙ্গে এবারের নির্বাচন বাংলাদেশময়

যেভাবে পশ্চিমবঙ্গে এবারের নির্বাচন বাংলাদেশময়

রেমডেসিভির রফতানিতে ভারতের নিষেধাজ্ঞা

রেমডেসিভির রফতানিতে ভারতের নিষেধাজ্ঞা

মঙ্গলবার থেকে সৌদি আরবে রোজা শুরু

মঙ্গলবার থেকে সৌদি আরবে রোজা শুরু

গুগল ম্যাপস অনুসরণ করে ভুল বিয়েবাড়িতে হাজির বরযাত্রীরা

গুগল ম্যাপস অনুসরণ করে ভুল বিয়েবাড়িতে হাজির বরযাত্রীরা

ইরানের পারমাণবিক কেন্দ্রে বৈদ্যুতিক গোলযোগ

ইরানের পারমাণবিক কেন্দ্রে বৈদ্যুতিক গোলযোগ

বাড়াবাড়ি করলে জায়গায় জায়গায় শীতলকুচি হবে: দিলীপ ঘোষের হুমকি

বাড়াবাড়ি করলে জায়গায় জায়গায় শীতলকুচি হবে: দিলীপ ঘোষের হুমকি

ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা কম, মিশ্রণের কথা ভাবছে চীন

ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা কম, মিশ্রণের কথা ভাবছে চীন

ভারতে দৈনিক শনাক্ত দেড় লাখ ছাড়ালো

ভারতে দৈনিক শনাক্ত দেড় লাখ ছাড়ালো

বিশ্বে প্রথমবারের মতো জীবিত ব্যক্তির দেহ থেকে ফুসফুস প্রতিস্থাপন

বিশ্বে প্রথমবারের মতো জীবিত ব্যক্তির দেহ থেকে ফুসফুস প্রতিস্থাপন

তুরস্ক সফরে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট, এরদোয়ানকে ফোন পুতিনের

তুরস্ক সফরে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট, এরদোয়ানকে ফোন পুতিনের

একদিনে ১২৬ বার ‘দিদি’ ডাকলেন মোদি

একদিনে ১২৬ বার ‘দিদি’ ডাকলেন মোদি

নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের আগে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কোনও আলোচনা নয়: ইরান

নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের আগে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কোনও আলোচনা নয়: ইরান

সর্বশেষ

যমুনার বুকে কৃষকের হাসি!

যমুনার বুকে কৃষকের হাসি!

ধর্ষণের পর আটকে রেখে মুক্তিপণ দাবির অভিযোগ, গ্রেফতার ৪

ধর্ষণের পর আটকে রেখে মুক্তিপণ দাবির অভিযোগ, গ্রেফতার ৪

নারায়ণগঞ্জে গ্যাসের আগুনে দুইজন দগ্ধ

নারায়ণগঞ্জে গ্যাসের আগুনে দুইজন দগ্ধ

৩০ কোটি টাকার টেন্ডার নিয়ে জবি ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের হাতাহাতি

৩০ কোটি টাকার টেন্ডার নিয়ে জবি ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের হাতাহাতি

দারিদ্র্য ছাপিয়ে দিপার তাক লাগানো সাফল্য

দারিদ্র্য ছাপিয়ে দিপার তাক লাগানো সাফল্য

দারুণ জয়ে শুরু কলকাতার, সাদামাটা সাকিব

দারুণ জয়ে শুরু কলকাতার, সাদামাটা সাকিব

পাটুরিয়া ঘাটে উপেক্ষিত স্বাস্থ্য বিধি!

পাটুরিয়া ঘাটে উপেক্ষিত স্বাস্থ্য বিধি!

সিনেমার জন্য তাদের আসল নামটাই মুছে গেলো!

সিনেমার জন্য তাদের আসল নামটাই মুছে গেলো!

হেলে পড়া ভবনটির অনুমোদন নেই, ভেঙে ফেলতে চসিককে চিঠি

হেলে পড়া ভবনটির অনুমোদন নেই, ভেঙে ফেলতে চসিককে চিঠি

জমি নিয়ে বিরোধ, প্রতিবেশীকে কুপিয়ে হত্যা

জমি নিয়ে বিরোধ, প্রতিবেশীকে কুপিয়ে হত্যা

যেভাবে পশ্চিমবঙ্গে এবারের নির্বাচন বাংলাদেশময়

যেভাবে পশ্চিমবঙ্গে এবারের নির্বাচন বাংলাদেশময়

ছাত্র ইউনিয়নের বহিষ্কৃত অংশের ‘জাতীয় জরুরি সম্মেলন’ আহ্বান

ছাত্র ইউনিয়নের বহিষ্কৃত অংশের ‘জাতীয় জরুরি সম্মেলন’ আহ্বান

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

যেভাবে পশ্চিমবঙ্গে এবারের নির্বাচন বাংলাদেশময়

যেভাবে পশ্চিমবঙ্গে এবারের নির্বাচন বাংলাদেশময়

রেমডেসিভির রফতানিতে ভারতের নিষেধাজ্ঞা

রেমডেসিভির রফতানিতে ভারতের নিষেধাজ্ঞা

মঙ্গলবার থেকে সৌদি আরবে রোজা শুরু

মঙ্গলবার থেকে সৌদি আরবে রোজা শুরু

গুগল ম্যাপস অনুসরণ করে ভুল বিয়েবাড়িতে হাজির বরযাত্রীরা

গুগল ম্যাপস অনুসরণ করে ভুল বিয়েবাড়িতে হাজির বরযাত্রীরা

ইরানের পারমাণবিক কেন্দ্রে বৈদ্যুতিক গোলযোগ

ইরানের পারমাণবিক কেন্দ্রে বৈদ্যুতিক গোলযোগ

বাড়াবাড়ি করলে জায়গায় জায়গায় শীতলকুচি হবে: দিলীপ ঘোষের হুমকি

বাড়াবাড়ি করলে জায়গায় জায়গায় শীতলকুচি হবে: দিলীপ ঘোষের হুমকি

ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা কম, মিশ্রণের কথা ভাবছে চীন

ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা কম, মিশ্রণের কথা ভাবছে চীন

ভারতে দৈনিক শনাক্ত দেড় লাখ ছাড়ালো

ভারতে দৈনিক শনাক্ত দেড় লাখ ছাড়ালো

বিশ্বে প্রথমবারের মতো জীবিত ব্যক্তির দেহ থেকে ফুসফুস প্রতিস্থাপন

বিশ্বে প্রথমবারের মতো জীবিত ব্যক্তির দেহ থেকে ফুসফুস প্রতিস্থাপন

তুরস্ক সফরে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট, এরদোয়ানকে ফোন পুতিনের

তুরস্ক সফরে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট, এরদোয়ানকে ফোন পুতিনের

Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.
© 2021 Bangla Tribune